এই মুহূর্তের খবর
সামাজিক সংগঠন পরিবর্তন কর্তৃক ‘পরিবর্তনের সিলেট’ শীর্ষক আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন বিসিক উদ্যোক্তা ফোরাম সিলেটের কমিটি গঠন ও ইফতার মাহফিল সামাজিক সংগঠন পরিবর্তন’র ইফতার ও দোয়া মাহফিল কাউন্সিলর নির্বাচনে এলাকা থেকে একজন প্রার্থী মনোনয়নে যতরপুর ক্লাবের মত বিনিময় স্বাধীনতা দিবস ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে পরিবর্তন’র আলোচনা সভা আন্তর্জাতিক নারী দিবস উপলক্ষে পরিবর্তন’র আলোচনা সভা পরিবর্তন’র উদ্যোগে ২১ শে ফেব্রুয়ারি শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদযাপন এসডিজি বাস্তবায়নে দক্ষতা উন্নয়ন’ শীর্ষক পরিবর্তন’র ভার্চুয়াল আলোচনা সভা স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী ও বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে পরিবর্তন’র আলোচনা সভা যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক প্রতিষ্ঠান বিএমএম টেকনোলজির কর্মী পরিচিতি অনুষ্ঠান সম্পন্ন
আগস্টে করোনা পরিস্থিতির নাটকীয় উন্নতি হবে – বললেন আনিসুল হক

আগস্টে করোনা পরিস্থিতির নাটকীয় উন্নতি হবে – বললেন আনিসুল হক

সোস্যাল মিডিয়া ডেস্ক : করোনা পরিস্থিতি নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আশার বানী শোনালেন দেশের জনপ্রিয় কথাশিল্পী আনিসুল হক। সোমবার নিজ ফেইসবুক আইডি থেকে বিভিন্ন ডাক্তারের পর্যবেক্ষণ, করোনার ওয়ার্ল্ডোমিটারের পরিসংখ্যান তুলে ধরে একটি বিশ্লেষণধর্মী লেখার মধ্য দিয়ে তিনি এই আশার বানী শোনিয়েছেন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্টকৃত আনিসুল হকের এই লেখাটি নিয়ে তাঁর সাথে কথা হয় দ্যা চেইঞ্জ টোয়েন্টিফোর ডটকমের সম্পাদক মিসবাহ আহমদের। অনুমতি সাপেক্ষে লেখাটি দ্যা চেইঞ্জ টোয়েন্টিফোরের সকল পাঠকদের জন্য হুবুহু প্রকাশ করা হলো।

‘ইতালির ডাক্তার বলছেন, করোনাভাইরাস দুর্বল হয়ে যাচ্ছে, ছিল বাঘ হয়ে গেছে বিড়াল।
একটা আশাবাদী প্রেডিকশন বলি। আমি এর আগে ফেসবুকে লিখেছিলাম, জুলাই পর্যন্ত করোনা ঠেকিয়ে রাখেন। আগস্টের মধ্যে আমরা জেনে যাব, বেস্ট প্রাকটিস চিকিৎসা কী। আর সামনের বছরে পাব ভ্যাক্সিন। আমি এই মত থেকে সরছি না। জুলাই পর্যন্ত ঠেকিয়ে রাখুন। আগস্টে পরিস্থিতির নাটকীয় উন্নতি হবে।

নিউ ইয়র্কে ইতালিতে স্পেনে উন্নতি হয়েছে। আমি বিশ্বাস করি না যে নিউ ইয়র্ক বাসী সোশাল ডিস্টান্সিং করেছে। বরং তারা দলে দলে বিক্ষোভে যোগ দিয়েছিল। এখন তাদের দৈনিক মৃত্যু প্রায় শূন্য। অনেক দেশেই এপ্রিলে ছিল পিক, মে জুনে এসে কমে গেছে। তাই ইতালির এক ডাক্তার বলেছেন, করোনা ভাইরাস ছিল বাঘ, ক্রমে ক্রমে নিজেকে বদলে হয়ে পড়েছে বিড়াল। টেলিগ্রাফ ইউকে দায়িত্বশীল পত্রিকা। তারা এটা ছেপেছেন।

এই দুর্বল হতে লেগেছে চার/পাঁচ মাস। আমাদের এখানে ৮ মার্চ শুরু। কাজেই জুলাইয়েও করোনা দাপট দেখাবে। আগস্টে করোনার ভয়াবহতা কমে যাবে। তিনটা কারণে:

১. ভাইরাস দুর্বল হবে।
২. ডাক্তাররা জেনে যাবেন, কী করলে রোগী দ্রুত সেরে যায়।
৩. মানুষও সচেতন হবে। তারা মাস্ক পরবে, হাত ধোবে, বিপজ্জনক এলাকা বর্জন করবে। আর অনেকে আক্রান্ত হয়ে ইমিউনও হয়ে যাবেন।

কাজেই আসুন, জুলাই পর্যন্ত ঠেকিয়ে রাখি। ঘর থেকে বের হব না। হাত ধোবো। মাস্ক পরব। নাকে চোখে মুখে হাত দেব না। ৬ ফুট দূরে থাকব। আগস্টে আমরা ধীরে ধীরে বের হতে পারব বলে আমি আশা করি। সেপ্টেম্বর নাগাদ পরিস্থিতি প্রায় স্বাভাবিক হয়ে আসবে। এই হলো আমার প্রেডিকশন।
তবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতেই হবে। নিউ নর্মাল জীবনই যাপন করতে হবে। তারপর আমরা যক্ষ্মার মতো করোনার সঙ্গে বসবাস করা শিখে ফেলব। এটার জন্য আর সবকিছু বন্ধ করতে হবে না।’

Share This Post in Your Social Media




© All rights reserved © 2020 thechange24.com
Design & Developed BY BMM Technology,Virginia,USA